আল্লামা শাহ মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরীর সহধর্মিণীর ইন্তেকালে হেফাজত আমীরের শোক প্রকাশ

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের প্রধান উপদেষ্টা, জামিয়া আজিজুল উলুম বাবুনগরের মহাপরিচালক মুজাহিদে মিল্লাত আল্লামা শাহ মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরীর সহধর্মিণীর ইন্তেকালে গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করেছেন হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমীর, হাটহাজারী মাদরাসার শায়খুল হাদীস ও শিক্ষা পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী।

গতকাল (৪ ঠা আগস্ট) বুধবার সংবাদমাধ্যম প্রেরিত এক শোকবার্তায় আমীরে হেফাজত বলেন, মরহুমা আমার আপন বড় মামী। তিনি একজন নেককার ও সতীসাধ্বী দ্বীনদার নারী ছিলেন। আমাকে তিনি অনেক বেশি স্নেহ ও মায়া মমতা করতেন। ভাগ্নে হিসেবে আমি তার অনেক আদর সোহাগ পেয়েছি। ছোটবেলায় তিনি আমাকে কোলেপিঠে নিয়ে লালন-পালন করেছেন। পারিবারিকভাবে আজ আমরা একজন অভিভাবক ও মুরুব্বি হারালাম। তারঁ ইন্তেকালে আমি গভীরভাবে শোকাহত।

আল্লামা বাবুনগরী আরো বলেন,আমার মামী বহুগুণের অধিকারী একজন মহীয়সী নারী ছিলেন। ভাগ্নে-ভাগ্নীদের তিনি আলাদা স্নেহ-মমতা করতেন। আত্মীয়তার বন্ধন রক্ষায় তিনি ছিলেন বিশেষ গুরুত্ববান। পুত্রবধূদের জন্য তিনি ছিলেন একজন আদর্শ ও অনুসরণীয় শাশুরী। নিজের মেয়েদের মতো পুত্রবধূদের স্নেহ,মায়া-মমতা করতেন।

তিনি আরো বলেন,মরহুমা- আমার নানা আরেফ বিল্লাহ আল্লামা শাহ হারুন বাবুনগরী (রহ.) এর বড় পুত্রবধূ। ছেলে-মেয়েদের জন্য তিনি ছিলেন একজন আদর্শ মা। তিন ছেলে ও আট মেয়ের জননী তিনি। ছেলেদের সকলকেই আলেম বানিয়েছেন। বড় ছেলে মাওলানা আইয়ুব, বাবুনগর মাদরাসার সহকারী পরিচালক এবং অপর দুইছেলে মাওলানা মহিউদ্দিন ও মাওলানা মুঈনুদ্দীন বাবুনগর মাদরাসার সিনিয়র শিক্ষক হিসেবে ইলমের খেদমত করে যাচ্ছেন। মরহুমার মেয়েদের জামাতারাও সকলেই আলেম । তাঁর নাতি-নাতনীদের মধ্যেও অনেকে আলেম হাফেজ হয়ে দ্বীনি খিদমাতে রত আছেন। তিন ছেলে ও নাতি-নাতনিদের আলেম হওয়ার পেছনে তাঁর বিশেষ ভূমিকা রয়েছে। এই মহীয়সী নারী তাঁর ৭৮ বছরের বর্ণাঢ্য হায়াতে পারিবারিক কাজকর্মের বাইরে দ্বীনের খিদমাতে বহু অবদান রেখে গেছেন।

মরহুমার শোক সন্তপ্ত পরিবার বর্গের প্রতি গভীর শোক ও সমবেদনা প্রকাশ করে আমীরে হেফাজত আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেন, আমার মামীর রুহের মাগফিরাত ও দারাজাত বুলন্দির জন্য দেশবাসীর নিকট দুআ চাচ্ছি। এবং মহান প্রভুর দরবারে আমি কায়মনোবাক্যে দুআ করি আল্লাহ তায়া’লা তাঁর ক্রুটি বিচ্যুতি ক্ষমা করে জান্নাতুল ফিরদাউস নসিব করুন, আমিন।