আইনুদ্দীন আল আজাদ রহ. এর প্রিয় গান নতুন করে গাইলেন রায়হান ফারুক

‘শাহাদাতের স্বপ্ন ছিলো আমার এ বুকে/সেই স্বপ্ন যেন যায় না প্রভু কখনো চুকে’। ইসলামী সংগীতের কিংবদন্তী মাওলানা আইনুদ্দীন আল আজাদ রহ. এর কালজয়ী এ কথাগুলোই বলে দেয় কতটা আবেগ আর ভালোবাসা মেখে হৃদয়ের গভীর থেকে গেয়েছিলেন তিনি এ গানের কথাগুলো। গানের কথা আর সুরই বলে দেয় শাহাদাত ছিল তার দিলের তামান্না। আর এই গানটিও তার বিশেষ পছন্দের ছিলো।

মাওলানা আইনুদ্দীন আল আজাদ রাহিমাহুল্লাহ’র ‘রক্তভেজা পথ’ এলবামে গাওয়া ঐতিহাসিক এ নাশিদটি  তারই হাতেগড়া শিষ্য কলরব এর শিল্পী রায়হান ফারুক নতুন করে গেয়েছেন। মেখে দিয়েছেন ভিন্ন এক আবেগ।

১৮ জুন মাওলানা আইনুদ্দীন আল আজাদ রহ. এর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে তার স্মৃতির স্মরণে মাসজুড়ে ‘স্মৃতির মিনারে আঈনুদ্দিন’ সিরিজ গান রিলিজের আয়োজন করেছে হলিটিউন। জীবদ্দশায় গাওয়া সংগীত সম্রাট এর গানগুলো তার প্রত্যক্ষ-পরোক্ষ শিষ্যরা গাইছেন নতুন করে। গাইছেন শিশুরাও। সময়ের সেরা শিল্পীদের কন্ঠে প্রায় প্রতিদিন একটি সংগীত ইউটিউবে আপলোড হচ্ছে হলিটিউন এর অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে।

প্রাণাধিক উস্তাদের গানে নিজের কণ্ঠ মিশিয়ে দিতে পারার আবেগ ভাগাভাগি করতে গিয়ে রায়হান ফারুক বলেন, প্রিয় উস্তাদ আইনুদ্দীন আল আজাদ রহ. আজ নেই। কিন্তু তার কর্ম আমাদের মাঝে বিদ্যমান। প্রিয় উস্তাদের পছন্দের গান, দিলের তামান্না নিজের কন্ঠে তুলতে পেরে আমি নিজেকে ধন্য মনে করছি। আল্লাহ তাকে জান্নাতে উঁচু মাকাম দান করুন।

তিনি বলেন, আজাদ রহ.কে স্মরণে ‘স্মৃতির মিনারে’র মতো চমৎকার সিরিজ আয়োজন এবং সবার কন্ঠে প্রিয় গানগুলো তুলে ধরার সুযোগ তৈরি করায় কলরব ও হলিটিউন পরিবারের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা এবং আন্তরিক ধন্যবাদ। সেই সাথে আমাকে যারা পেছন থেকে উৎসাহ অনুপ্রেরণা দিয়ে কর্মস্পৃহা যুগিয়ে থাকেন তাদের প্রতিও জানাই আন্তরিক কৃতজ্ঞতা।

আজাদ রহ. এর সঙ্গে কাটানো স্মৃতির কথা স্মরণ করে রায়হান ফারুক বলেন, প্রিয় উস্তাদ আঈনুদ্দিন আল আজাদ রহ. এর হাত ধরে সাংস্কৃতিক অঙ্গনে পথচলা শুরু। ২০০৯ সালের ১৪ এপ্রিল ফেনীতে কলরব এর শাখা উদ্ভোধন উপলক্ষ্যে বিশাল প্রতিযোগিতা। ১৫০জন অংশগ্রহণকারীর মধ্যে আমি সহ ৬জন উত্তীর্ণ হই। প্রথম দিনেই প্রিয় উস্তাদের সাথে সফর করার সুযোগ পেয়ে যাই। আমাদের (ফেনীর) প্রোগাম শেষে চাটখিলে মাহফিল ছিলো। সেখানে তিনি আমাকে নিয়ে যান এবং গান গাওয়ার সুযোগ করে দেন। সেই থেকে চর্চা। আজ তারই গান কন্ঠে তুলেছি। কত যে ভাল লাগছে তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না।