শিল্পপতিদের টাকা পাচারের বাজেটে উপেক্ষিত হয়েছে কর্মসংস্থান – ইসলামী যুব আন্দোলন

সরকার বলেছে এই বাজেটে জীবন ও জীবিকা কে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে কিন্তু বাস্তবতা হলো ২০২১-২২ এর খসড়া বাজেটের মাধ্যমে সরকার অতি মুনাফা খোর শিল্পপতিদের দেশের টাকা বিদেশে পাচার সুযোগ করে দিয়েছে। এই বাজেটে দেশের বেকার যুবকদের জন্য নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির কোন পদক্ষেপ নেই, নেই নতুন উদ্যোক্তা ও কুটির শিল্পের উদ্যোক্তাদের জন্য ঋণ অথবা প্রণোদনার কথা।

আজ ৪ জুন শুক্রবার বাদ জুমা ব্যাপকভিত্তিক যুব সমাজের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা ও জাতীয় বাজেটে ঋণনির্ভরতা কমিয়ে আনার দাবিতে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে বিক্ষোভ পূর্ব সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে ইসলামী যুব আন্দোলন এর সেক্রেটারি জেনারেল আতিকুর রহমান মুজাহিদ উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

তিনি আরো বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে করোনায় বিপর্যস্থ মধ্যবিত্তদের জন্য কিছুই নেই। অথচ জনপ্রশাসনে সর্বোচ্চ বরাদ্দ দিয়ে অবৈধ সরকার আবারো প্রমাণ করলো তারা জনগণের ভোটে নয়; বন্দুকের নল দিয়ে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়। সামাজিক নিরাপত্তার কথা বললেও সামাজিক নিরাপত্তার মাথাপিছু বরাদ্দ বাড়েনি, এই বাজেটে নতুন দরিদ্র ও শহরের দরিদ্রদের জন্য কোনই কর্মসূচি রাখা হয়নি। বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান এই অর্থ বাজেটে তিনটি খাতকে গুরুত্ব দেয়ার বিষয় সুপারিশ করেছে, খাতগুলো হলো স¦াস্থ, কর্মসংস্থান ও সামাজিক নিরাপত্তা এবং কর্মসংস্থান সৃষ্টি করবে এমন ব্যয় রেখে অনুৎপাদনশীল ব্যয় কাট ছাট করার পরামর্শ দিয়েছেন। কিন্তু প্রস্তাবিত বাজেটে তা সম্পূর্ন রুপে উপেক্ষিত হয়েছে।

বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে বক্তারা আরো বলেন, পরপর দুই অর্থবছর অর্থমন্ত্রী কর্পোরেট হার কমালেন, যার ফলে এখন কর্পোরেট হার কমে দাঁড়ালো ৫শতাংশ, অর্থমন্ত্রী বলেছেন এর ফলে নাকি নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে, কিন্তু বাস্তবতা হলো এতে বিদেশে টাকা পাচার বৃদ্ধি ছাড়া সাধারণ জনগণের কোন লাভ হবে না, লাভবান হবে দেশের গুটিকয়েক শিল্পপতি । যার ফলে ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য আরও প্রকট আকার ধারণ করবে।

বক্তারা ধার-দেনার অসম এই বাজেট প্রত্যাখ্যান করে বলেন, অনতিবিলম্বে যুবসমাজের প্রত্যাশিত বাজেট প্রণয়ন করুন যে বাজেটে থাকবে নতুন কর্মসংস্থানের কথা, যে বাজেটে থাকবে জীবন-জীবিকার কথা। তা না হলে দেশের সকল যুব সমাজকে সাথে নিযয়ে মানুষের জীবন-জীবিকার বাজেটের জন্য দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে ইনশাআল্লাহ। সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইসলামী যুব আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতী মানসুর আহমাদ সাকী, দফতর সম্পদক মুহাম্মাদ মাহবুবুল আলম, দাওয়াহ ও প্রশিক্ষণ সম্পাদক মুফতি রহমাতুল্লাহ বিন হাবিব, শিল্প ও বানিজ্য সম্পাদক শেখ নূর উন নাবী, প্রচার সম্পাদক মুহাম্মাদ ইলিয়াস হাসান, নগর উত্তর সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ।

বিক্ষোভ পূর্ব সমাবেশ থেকে নিমোক্ত দাবিসমূহ করা হয়
* বেকার যুবকদের জন্য বিনা শর্তে, সহজ কিস্তিতে ১০লক্ষ টাকা ঋণ প্রদান।
* বিদেশে যেতে ইচ্ছুক যুবকদের সরকারী খরচে পাঠানোর ব্যবস্থা করা।
* করোনার আপদকালীন সংকট দূরীকরণে সরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকরীর বয়সসীমা ৩০ থেকে ৩৫ করতে হবে।
* আগামী ৫ বছরে যে কোনো নিয়োগের সকল ফি মওকুফ করতে হবে।

মা’আসসালাম
মুহাম্মাদ ইলিয়াস হাসান
কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক
ইসলামী যুব আন্দোলন