তারাবির নামাজে ভয়াবহ হামলা, মুয়াজ্জিনসহ আহত ১০

 

নামাজ হল ইসলাম ধর্মের প্রধান উপাসনাকর্ম। প্রতিদিন ৫ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করা প্রত্যেক মুসলিমের জন্য ফরজ।

ঈমান বা বিশ্বাসের পর নামাজই ইসলামের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ। একজন মুসলমান হিসেবে আমাদের প্রত্যকেরই নামাজ আদায় করা উচিৎ। তাতে আসুক যত বাধা-বিপত্তি।

নতুন খবর হচ্ছে, নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার গণ্ডা ইউনিয়নের বৈরাটি গ্রামের একটি মক্তবে তারাবির নামাজ আদায়ের সময় মুসল্লিদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।

জানা গেছে, কয়েকদিন আগে ধান শুকানোর জায়গার ওপর দিয়ে মাড়াইয়ের মেশিন নেয়াকে কেন্দ্র করে বৈরাটি গ্রামের আব্দুর রউফের সঙ্গে হামিদুল ইসলাম ও তার লোকজনের ঝগড়া হয়। এর জের ধরে হামিদুল ও তার লোকেরা গত বুধবার আব্দুর রউফ, তার স্ত্রী ও মাকে মারপিট করে। এ ঘটনায় আব্দুর রউফ বাদী হয়ে হামিদুল ও তার দুই ছেলেসহ কয়েকজনকে আসামি করে কেন্দুয়া থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পুলিশ হামিদুলের ছেলে টিটু মিয়াকে গ্রেফতার করে। টিটুকে গ্রেফতারের পরপরই হামিদুল ও তার লোকেরা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। তারা সংঘবদ্ধ হয়ে গ্রামের মক্তবে তারাবির নামাজ আদায়ের সময় প্রতিপক্ষের ওপর অতর্কিতে হামলা ও বাড়িঘরে লুটপাট চালায়। খবর পেয়ে কেন্দুয়া থানা থেকে পুলিশ পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।