হেফাজতে উগ্রপন্থীদের নেতৃত্ব দিতেন মুফতি হারুন: গোয়েন্দা শাখার পরিচালক খায়রুল ইসলাম

বক্তব্য-বিবৃতিতে জিহাদের ডাক দেওয়া হারুন ইজহারকে এর আগেও গ্রেফতার করেছিল পুলিশ।

জামিনে বেড়িয়ে আগের মতোই উগ্রপন্থা মতবাদ ছড়িয়ে কথিত খেলাফত প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছিলেন তিনি।

বৃহস্পতিবার (২৯ এপ্রিল) ভোরে চট্টগ্রামের লালখান বাজারের জামেয়াতুল উলুম আল ইসলামিয়া মাদ্রাসা থেকে এক সহযোগীসহ হারুন ইজহারকে গ্রেফতার করে এলিট ফোর্স র‌্যাব।

পরে হাটহাজারী থানা পুলিশ হারুন ইজহারকে তিনটি মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে ২১ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে। আদালত রিমান্ড শুনানির জন্য পরবর্তী তারিখ নির্ধারণ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এলিট ফোর্স র‌্যাবের গোয়েন্দা শাখার পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মুহাম্মদ খায়রুল ইসলাম এ কথা বলেন, ‘সাম্প্রতিক মোদিবিরোধী আন্দোলনের নামে হেফাজত হাটহাজারীতে যে তাণ্ডব চালিয়েছিল, তার মদদদাতা ছিলেন হারুন ইজহার।

তার বিরুদ্ধে আগে থেকেই উগ্রপন্থা ছড়ানো এবং জঙ্গি কার্যক্রমে জড়ানোর অভিযোগে মামলাও রয়েছে। গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তার কাছে চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গেছে। এসব তথ্য যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে।’

গোয়েন্দা সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানায়, হেফাজতে ইসলামে ‘মানহাজি’ নামে বড় একটি গ্রুপ রয়েছে। এরাই বর্তমানে হেফাজতকে নানারকম আগ্রাসী কর্মসূচি দিতে বাধ্য করতো।

হেফাজতে এই গ্রুপের প্রভাব অনেক বেশি। এই গ্রুপটির নেতৃত্বে ছিলেন হারুন ইজহার। এছাড়া তার নেতৃত্বাধীন গ্রুপটি ‘গাজওয়াতুল হিন্দ’ এর সময় এসে গেছে বলে বিভ্রান্তিকর প্রচারণা করে বেড়াতো।