আফগানিস্তানে কুরআন প্রতিযোগিতায় রকেট হামলায় ১৬ শিশু হাফেজ আহত

আফগানিস্তান এর পূর্ব কুনার প্রদেশের এক সরকারি কম্পাউন্ডে হিফজুল কুরআন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠান চলাকালে রকেট হামলায় আহত হয়েছে অন্তত ১৬ শিশু হাফেজ।

স্থানীয় কর্মকর্তারা এ ঘটনার জন্য তালেবানকে দোষারোপ করেছেন। তবে তালেবানের পক্ষ থেকে কোনো বিবৃতি আসেনি।

সম্প্রতি শান্তিচুক্তি আলোচনার অগ্রগতিতে ব্যর্থতায় আফগান সরকার ও তালেবানদের মধ্যে সহিংসতা বেড়েছে। কুনার প্রদেশের গভর্নর ইকবাল সাঈদ জানান, কুরআন তেলাওয়াত প্রতিযোগিতা চলাকালে সরকারি কম্পাউন্ডের হলঘরে এই রকেট হামলা হয়।

এতে ১৬ শিশুসহ নিরাপত্তা বাহিনীর অন্তত তিন সদস্য ও অন্যান্য কর্মকর্তারা আহত হয়েছেন বলেন জানান সাঈদ। শিশুদের কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

আফগান সরকার দাবি করছে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন সেপ্টেম্বরের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে সব মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করার ঘোষণা দেওয়ায় নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর নতুন করে হামলা করছে তালেবান।

সরকারি কর্মকর্তারা বলছেন, গত ১০ দিনে নিরাপত্তাকর্মী ও সাধারণ মানুষ মিলিয়ে প্রায় একশ জনেরও বেশি মানুষ মারা গেছে, আহত হয়েছে আরও অনেকে।

সোমবার জালালাবাদে রাস্তার ধারে বোমা বিস্ফোরণে আহত হয় ছয়জন। এর আগে রোববার লোগার প্রদেশে পুলিশের জনসুরক্ষা ইউনিটের আট সদস্যকে তালেবান হত্যা করেছে বলে জানিয়েছেন পুলিশের এক মুখপাত্র।

কাতারের দোহায় আফগান সরকার ও তালেবানের মধ্যে শান্তি আলোচনা থমকে আছে। তালেবন অংশ না নেওয়ায় ২৪ এপ্রিলে তুরস্কে মার্কিন সমর্থিত আফগান ‘শান্তি সম্মেলন’ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলে তা পিছিয়ে দেওয়া হয়।

২০২১ সালের প্রথম তিন মাসে প্রায় ১,৮০০ জন আফগান সরকার ও তালেবানের মধ্যে সংঘর্ষে আহত হয়েছে বা মারা গেছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ।