হেফাজত নেতাদের জন্য দোয়া, ইমামকে থানায় নিয়ে গেল পুলিশ

বাংলাদেশ হেফাজতের কর্মীরা পুলিশি দ্বারা হয়রানি স্বীকার হচ্ছে- দোয়ায় এমন কথা বলার অভিযোগে নওগাঁ শহরের ‘গোডাউন জামে মসজিদের ইমাম আহমুদুল হককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নেয়া হয়েছিল। পরে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ।
গতকাল শুক্রবার বিকেল ৫টার দিকে মসজিদের গেট থেকে তাকে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। একই দিন রাত ১২টার দিকে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, শহরের কাজীর মোড় গোডাউন জামে মসজিদে শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে মোনাজাত করা হয়। এ সময় ইমাম আহমুদুল হক দলমত নির্বিশেষে মুসলিমদের শান্তি কামনা এবং করোনাভাইরাসের রোগমুক্তি কামনায় দোয়া করছিলেন। প্রতি শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে তিনি মোনাজাত করতেন। কিন্তু মোনাজাতের সময় হেফাজতের কোনো কথা সেখানে বলা হয়নি বলে জানিয়েছেন মুসল্লিরা।

ইমামের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে- হেফাজতের কর্মীরা পুলিশি হয়রানির স্বীকার হচ্ছে এবং আটক ওলামাদের মুক্তির কথা বলে দোয়া করা হয়েছে। এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে বিকাল ৫টার দিকে মসজিদের গেট থেকে তাকে থানায় নিয়ে আসে পুলিশ।

নওগাঁ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম বলেন, তিনি (আহমুদুল হক) নিজেই থানায় আসছিলেন। তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছিল। পরে বিধি মোতাবেক তাকে মসজিদ কমিটির নিকট ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।