মামুনুল হক ইসলামের দলিল না : মুফতি সৈয়দ ফয়জুল করিম

 ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সিনিয়র নায়েবে আমীর আল্লামা মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম শায়খে চরমোনাই বলেছেন, মামুনুল হক কিংবা কোন ব্যক্তি ইসলামের দলিল নয়, মামুনুল হক মানে ইসলাম নয়।

তিনি বলেন, একদল মনে করছেন মামুনুল হককে নির্দোষ প্রমাণ করতে পারলে ইসলাম পবিত্র হবে আর একদল মনে করছেন মামুনুল হককে বিতর্কিত করতে পারলে ইসলামকে বিতর্কিত করা যাবে। আসলে দু’দলই ভুলের মধ্যে আছেন। আমি আপনি বিতর্কিত হলাম কিংবা কিংবা পাক নির্দোশ হলাম এতে ইসলামের কিছু যায় আসেনা। ইসলাম ইসলামের জায়গায় মহান পবিত্র হিসেবে সব সময় ছিল, আছে, থাকবে। নষ্টের মুলে আপনি আর আমি। আমি ব্যক্তি খারাপ হতে পারি, ইসলাম খারাপ হতে পারেনা। তাই ভূলত্রুটি হলে সাথে সাথে তওবা করে নিতে হবে। আল্লাহর দরবারে কান্নাকাটি করতে হবে। এছাড়া কোন পথ নেই।

তিনি বলেন, সাহাবাদের মধ্যেও অনেকে ঈমান হারা হয়েছিলেন। নারীর ফাঁদে পড়ে অনেকে ঈমান হারা হয়েছিলেন। তাই বলে ওটা দলিল হতে পারেনা। খোদ আল্লাহর হাবিব রাসুল (সা.) এর জামাতা আল্লাহর রাসুলের বিরুদ্ধে ইসলামের বিরুদ্ধে ময়দানে যুদ্ধ করেছেন। তাই বলে ইসলামের কোন সমস্যা হয়নি। ইসলাম পুতপবিত্র। আমি আপনার মাঝেই যত সমস্যা।

তিনি উদহারণ দিয়ে বলেন, মসজিদে জামাত চলমান অবস্থায় ইমামের যদি অজু ছুটে যায় আমরা কি তার ইকতেদা করি?? না কখনো করিনা। সাথে সাথে পিছন থেকে মুকতাদিদের মধ্য হতে একজন ইমামতির জায়গায় গিয়ে নামাজ পড়ান। সমস্যা নেই, একটু আগে অজু ছিল, আনুগত্য করেছি, এখন অজু নেই আনুগত্য করা যাবে না।

এটাই ইসলাম। অজু ছুটে যাওয়া সেই ইমামের পিছনে পড়ে থাকা ইসলাম হতে পারেনা। একই ভাবে চলন্ত গাড়িতে আমরা যাত্রী ছিলাম, হঠাৎ গাড়ির পাম্প ছাড় হয়েছে। আমরা সবাই কি করি? গাড়ি থেকে নেমে যাই। এটাই নিয়ম।

এক্সিডেন্ট হতেই পারে। আজ আমি ঈমানের হালতে আছি, কাল আল্লাহ না করুক এক্সিডেন্ট হতে পারি। এটাতো হাদিস শরীকে স্পষ্ট আছে, মানুষ সকালে ঈমানদার, বিকেলে বেঈমান হবে, বিকেলে বেঈমান সকালে ঈমানদার হবে। তাই বেশী বেশী আল্লাহর কাছে চাইতে হবে যাতে আমরা বিপদগামী না হই। তিনি মামুনুল বিষয়কে ইসলামের সাথে মিলিয়ে ইসলামকে আক্রমন না করলে আহবান জানান।

আজ ১৬ এপ্রিল শুক্রবার জুমার খুৎবার আলোচনায় শায়খে চরমোনাই আরো বলেন, মৃত্যুর পর আল্লাহর কাছে ক্ষমা না পাওয়া পযর্ন্ত নিজেকে নিজে একজন শুয়ারের চেয়ে ভাল মনে করা যাবে না।

আমরা সবাই অপরাধী। গুনাহগার। যখন তখন আমরা যে কেউ পথভ্রষ্ট হয়ে যেতে পারি। এটা স্বাভাবিক ব্যাপার। কেউ এক্সিডেন্ট হয়ে লাইনচ্যুৎ হলে আমরা তার অনুস্বরণ থেকে বিরত থাকব। কিন্তু সেটা নিয়ে পড়েই থাকব আর ব্যক্তির ঘটনা নিয়ে ইসলাম বিরোধীতায় নেমে পড়ব সেটা কখনো সমর্থন যোগ্য হতে পারেনা। তিনি সবাইকে সতর্কতার সহিত পথ চলতে আহবান জানান।