ইসলামী আন্দোলন হেফাজতের অন্তর্ভুক্ত, এই গায়েবী আওয়াজ যেন সত্য না হয়!

 

হেফাজতের আজকের মিটিংয়ে পদোন্নতি-অব্যাহতির গায়েবী আওয়াজ এখন তুঙ্গে। আবার কাউকে বহিস্কারের কথাও শুনা যাচ্ছে। সবচেয়ে স্পর্শকাতর বিষয় হলো, ইসলামী আন্দোলনকে নাকি হেফাজতে অন্তর্ভুক্ত করা হবে..! আও ক্বামা ক্বল! নাউজুবিল্লাহ!!

ইসলামী আন্দোলনের কোনো কোনো শুভাকাঙ্ক্ষী আবেগের ঠেলায় এজাতীয় লেখালেখি করে নিজ নিজ যৌক্তিকতা তুলে ধরেছেন।

আমি চাই এমন কিছু না হোক। যেটি ইসলামের স্বার্থে হয়নি। সেটি ব্যক্তি স্বার্থে হওয়ার প্রশ্নই আসে না।

খবরদার কারো মৌসুমী ফাঁদে পা দিয়ে ইসলামী আন্দোলন এই ভুল করবে বলে মনে হয় না।

ওয়ালাও ফরজান, যদি ইসলামী আন্দোলনকে ডাকে তাহলে সেটি যে আলোচনার মোড় অন্যদিকে ঘুরিয়ে দেয়ার কৌশল বৈ কিছুই নয়, আশাকরি এটা সকলেরই জানা আছে।

ইসলামী আন্দোলন হেফাজতের  এই মান-অভিমানের খেলা টিকে থাকা দরকার।

কোনো প্রয়োজন নেই, হেফাজত নামক অষ্টধাতুর আংটি পড়া থেকে যতো দূরে থাকবে ততই মঙ্গল হবে, এবং হয়েছেও।

ইসলামী আন্দোলনের অগ্রযাত্রার জন্য হেফাজত থেকে দূরে থাকাটা অনেক সহায়ক শক্তি হিসেবে কাজ করেছে।

কোনো প্রয়োজনই নেই। আমি জানি এগুলো সবই গুজব। তবে আলোচনার মোড় ভিন্ন দিকে ঘুরিয়ে দিতে সৎ ভাইরা এমন কিছু করে বসতে পারে। ওরা এসব কাজে বেশ পটু।

ইতিমধ্যে চার রাকাআত নফল নামাজ পড়ছি এই নিয়তে, যেন হেফাজতে চরমোনাই ওয়ালাদেরকে না রাখা হয়।

আমার বিশ্বাস এমনই হবে। এর বিপরীতে যেন কোনো দুঃসংবাদ না শুনি। আল্লাহ হেফাজত করুক।

রেসমি রুমাল