আ’লীগ নির্বাচনকে গুন্ডামি-মাস্তানি ও চুরির উৎসবে পরিণত করেছে: পীর সাহেব চরমোনাই

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকে প্রতিটি নির্বাচনে মাস্তানি-গুন্ডামি ও ভোট চুরির মহোৎসব হয়েছে। দুর্ভাগ্যজনকভাবে প্রশাসন, এমনকি নিরাপত্তা বাহিনীগুলোকেও তারা ভোট চুরির কাজে ব্যবহার করেছে।
তিনি বলেন, গতকাল রোববারের পৌর নির্বাচনেও তারা যা করেছে তার নিন্দা জানানোর ভাষা আমাদের নাই। সম্মিলিত মাফিয়াতান্ত্রিক ভোট ডাকাতির আরেকটি বিভৎস দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো স্বাধীনতার কথিত নেতৃত্বদানকারী দলটি।
সোমবার ১৫ ফেব্রুয়ারি এক বিবৃতিতে পীর সাহেব চরমোনাইেউপরোক্ত কথাগুলো বলেন। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতিতে ভোট জালিয়াতি একটি সাধারণ রেওয়াজ হলেও আঃলীগ যেভাবে রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে ব্যবহার করে ভোট চুরিকে প্রতিষ্ঠানিকীকরণ করেছে তা নজিরবিহীন। একের পরে এক জাতীয় ও স্থানীয় নির্বাচনকে এভাবে গুন্ডামি-মাস্তানি ও চুরির উৎসবে পরিণত করায় গণতন্ত্র ও নির্বাচনের প্রতিই মানুষের আস্থা হারিয়ে গেছে। সাম্প্রতিক নির্বাচনগুলোতে ভোটার উপস্থিতিই এর প্রমাণ বহন করে।

মুফতী রেজাউল করীম বলেন, যে জাতি ভোটের অধিকার রক্ষার প্রশ্নে সংগ্রাম করে স্বাধীনতা অর্জন করেছে সেই জাতি স্বাধীনতার ৫০ বর্ষে এসে ভোটের অধিকার পুরোপুরি হারিয়ে ফেলেছে এবং ভোটাধিকার হরণের সেই কলংকে নেতৃত্ব দিয়েছে আওয়ামী লীগ।
পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, আঃলীগ দেশকে আবারো ৭১ পুর্ব পরিস্থিতিতে ঠেলে দিয়েছে। ১৯৭১ সালে আঃলীগের কৃতিত্বের পুরোটাই তাদের গত ১৩ বছরের অপকর্মে হারিয়ে গেছে। আঃ লীগ যেনো বাংলাদেশের আইযুব খান। এই আধুনিক আইয়ুব শাসনের হাত থেকে জাতিকে রক্ষা করতে আরেকটি ৭১ এর সম্ভাবনা প্রকট হচ্ছে দিন দিন।