পুলিশ অন্যায় করলে লিখবেন, মিথ্যা কিছু নয় : আইজিপি

ইসলামী জার্নাল ; বাংলাদেশ পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বলেছেন, ‘অন্যায় বা ভুল করলে পুলিশ বিভাগের যে কারও বিরুদ্ধে রিপোর্ট করবেন। কিন্তু মিথ্যা কথা লিখবেন না। বানিয়ে লিখবেন না।’

বৃহস্পতিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের (ক্র্যাব) নবনির্বাচিত কার্যনির্বাহী কমিটির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

আইজিপি বলেন, ‘সাংবাদিকতায় এখন অনেক চৌকস মেধাবীরা আসছেন। তাদের কাছে আমাদের প্রত্যাশা অনেক বেশি। পুলিশ বিভাগেও স্বচ্ছতা-জবাবদিহিতা ফিরিয়ে আনা হয়েছে। আমাদের ভালো কাজ মিডিয়ার মাধ্যমে জনগণ যেন জানতে পারে সেদিকে নজর দিতে হবে।’

পুলিশ সদর দফতরের শাপলা কনফারেন্স সেন্টারে অনুষ্ঠিত সৌজন্য সাক্ষাতে ক্র্যাব সভাপতি মিজান মালিক ও সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আরিফের নেতৃত্বে কমিটির অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘সাংবাদিকদের সঙ্গে পুলিশের প্রাতিষ্ঠানিক সম্পর্ক রয়েছে। মেইনস্ট্রিম মিডিয়ায় জবাবদিহিতা রয়েছে। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ায় কোনো জবাবদিহিতা নেই। এই মিডিয়া থেকে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। এটা একটা বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ।’
এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় যৌথভাবে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

আইজিপি বলেন, ‘এক সময় ঢাকায় ১৬৫টি ছিনতাই স্পট ছিল। বিমানবন্দর থেকে নারায়ণগঞ্জ পর্যন্ত রেললাইনের দুই পাশে ছিল মাদকের হাট। এখন রাজধানীসহ সারাদেশে মাদক ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড অনেকটাই কমে এসেছে। আগে প্রতিদিন গুলি-ছিনতাইয়ের খবর পাওয়া যেত।
‘পুলিশ এক সময় টেলিভিশন চ্যানেল দেখলে পালাতো। এখন একজন রাস্তায় দায়িত্ব পালনরত কনস্টেবলও সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন। আমরা এ আস্থার জায়গাটা তৈরি করতে পেরেছি।’
বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘গুলশান-বারিধারা এলাকায় কোনো চুরি-ছিনতাই হয় না। কারণ ওই এলাকাগুলো সিসি ক্যামেরার আওতায়। গুলশান, বারিধারা, বনানী এলাকায় সাড়ে ১১শ সিসি ক্যামেরা লাগানো হয়েছে স্থানীয়দের সহায়তায়।’

পুলিশের আচরণ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘পুলিশে কেন দুর্নীতি থাকবে, কেন ভুল বোঝাবুঝি হবে? পুলিশের আচরণ পরিবর্তনে কাজ চলছে।’
পুলিশ সদস্যদের আরও স্মার্ট হওয়ার আহ্বান জানান আইজিপি।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ক্র্যাবের সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আরিফ। সংগঠনের নানা পরিকল্পনার কথা তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন সভাপতি মিজান মালিক।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে ক্র্যাবের যুগ্ম সম্পাদক হাসানুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহরিয়ার আরিফ, অর্থ সম্পাদক এমদাদুল হক খান, দফতর সম্পাদক ইসমাইল হোসেন ইমু, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক রুদ্র মিজান, প্রশিক্ষণ ও গবেষণা সম্পাদক সাজ্জাদ মাহমুদ খান, আন্তর্জাতিক সম্পাদক রুদ্র রাসেল, কার্য নির্বাহী সদস্য গোলাম সাত্তার রনী, এসএম মিন্টু হোসেন, জামশেদ নাজিমসহ পুলিশ সদর দফতরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।