ভারতের মাটিতে ধর্মের কোনো বিভেদ নেই : মোদি

ইসলামী জার্নাল : ভারতের উত্তরপ্রদেশের আলিগড় মুসলিম ইউনিভার্সিটির সমাবর্তন অনুষ্ঠানে আজ মঙ্গলবার বক্তৃতা করেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ছবি : সংগৃহীত

ভারতের উত্তরপ্রদেশের আলিগড় মুসলিম ইউনিভার্সিটির সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বক্তৃতায় দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছেন, ‘ভারতের মাটিতে ধর্মের কোনো বিভেদ নেই। ধর্মের নামে এদেশে কাউকে কোনো সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত করা হবে না। সবকা সাথ সবকা বিকাশ, সবকা বিশ্বাস এই স্লোগানে ভর করেই এগিয়ে চলেছে আজকের ভারত।’

১৯৬৪ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী লাল বাহাদুর শাস্ত্রী শেষবার আলিগড় মুসলিম ইউনিভার্সিটির সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন। তারপর থেকে ভারতের আর কোনো প্রধানমন্ত্রী এই বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো অনুষ্ঠানে যোগ দেননি। দীর্ঘ ৫৬ বছর পর মোদি তা করলেন। সমাবর্তনে ভিডিওকলের মাধ্যমে যোগ দিয়ে বক্তব্য দেন তিনি।

নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘ধর্ম সমাজের একটি অংশ। তবে একমাত্র দিক নয়। ভারতের উন্নতিতে কিছু অশুভ শক্তি বাধা দিচ্ছে। কিন্ত আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয় বরাবরই আধুনিক মুসলিম সমাজ গঠনে কাজ করে চলেছে।’
মোদি বলেন, ‘আমাদের সরকার তিন তালাক প্রথা বাতিল করে আধুনিক মুসলিম সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেছে।’
ভারতের প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ‘ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার এখন মুসলিম নারীদের শিক্ষা ক্ষেত্রে বিশেষ নজর দিয়েছে। ২০১৪ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত ভারত সরকার এক কোটি মুসলিম নারীকে বৃত্তি দিয়েছে। ভারতের দিকে এখন সারা বিশ্ব তাকিয়ে রয়েছে। ভারত এখন এমন রাস্তায় এগিয়ে চলেছে যে, ভারতের প্রতিটি নাগরিক আজ নিজের নিজের সাংবিধানিক অধিকার পাওয়ার ব্যাপারে নিশ্চিত এবং নিশ্চিন্ত।’
নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘করোনা মহামারিতে কেন্দ্রীয় সরকারের দেওয়া খাদ্যশস্য ভারতের সব ধর্মের মানুষ পেয়েছেন। এদেশে ধর্মের ভিত্তিতে মানুষে মানুষে বিভেদ হয় না। তাই ভারতের প্রতিটি নাগরিককে ধর্মের বিভেদ ভুলে দেশের উন্নতিতে অবদান রাখতে হবে। ভারতের সৌন্দর্য ও ব্যাপ্তি বিশ্বের দরবারে তুলে ধরার ক্ষেত্রে ছাত্রছাত্রীদের অগ্রণী ভূমিকা নিতে হবে। আর সেক্ষেত্রে আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ভারতের প্রতি কর্তব্য পালন করতে হবে। সেইসঙ্গে নিজেদের সম্মান বাড়াতে হবে।’