জয়পুরহাটে বাস ও ট্রেনের সংঘর্ষে অন্তত ১১ জন নিহত হয়েছেন।

শনিবার সকালের এই দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও চারজন।

জয়পুরহাট সদর থানার ওসি আলমগীর জাহান হতাহতের এই খবর জানান।

নিহতদের মধ্যে ছয়জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- বাসচালক সদর উপজেলার হারাইল গ্রামের মামুনুর রশিদ, হিচমী গ্রামের মানিকের ছেলে রমজান, পাঁচবিবি উপজেলার আটুল গ্রামের সরোয়ার হোসেন, আরিফুর রহমান রাব্বি, আক্কেলপুর উপজেলার চক বিলা গ্রামের দুদু কাজীর ছেলে সাজু মিয়া এবং নওগাঁর রানী নগর উপজেলার বিজয়কান্দি গ্রামের বাবু।

আহত তিনজনের পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন- পাঁচবিবি উপজেলার ফারুখ হোসেন, একই উপজেলার সিরাজুল ইসলামের ছেলে জিয়া, টাঙ্গাইলের মাটিকাটা গ্রামের শুকুর আলীর জুলহাস।

তারা বলে জয়পুরহাট ছেড়ে আসা বাঁধন নামের একটি যাত্রীবাহী বাস হিলি স্থল বন্দরের দিকে যাচ্ছিল। সকাল ৭টার দিকে পুরানাপৈল রেল গেইট অতিক্রম করার সময় দিনাজপুরের পার্বতীপুর থেকে আসা রাজশাহীগামী উত্তরা এক্সপ্রেস ট্রেন সজোরে এটিকে ধাক্কা দেয়।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম জানান, বাসে থাকা ১০ জন যাত্রী ঘটনাস্থলেই নিহত হন, আহত হন আরও ৫ জন।

খবর পেয়ে জয়পুরহাট ও পাঁচবিবি ফায়ার স্টেশনের সদস্যরা হতাহতদের উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে পাঠায়।